business loans, commercial loan, auto insurance quotes, motorcycle lawyer

স্বাধীনতা দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রতিবেদন

আসসালামু আলাইকুম প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা আজকে বিষয় হলো স্বাধীনতা দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রতিবেদন জেনে নিবো। তোমরা যদি পড়াটি ভালো ভাবে নিজের মনের মধ্যে গুছিয়ে নিতে চাও তাহলে অবশ্যই তোমাকে মনযোগ সহকারে পড়তে হবে। চলো শিক্ষার্থী বন্ধুরা আমরা জেনে নেই আজকের স্বাধীনতা দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রতিবেদন  টি।

স্বাধীনতা দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রতিবেদন
স্বাধীনতা দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রতিবেদন

স্বাধীনতা দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রতিবেদন

২৮ মার্চ, ২০২২ খ্রি.

বরাবর

অধ্যক্ষ

আদিতমারী কে. বি. কলেজ

আদিতমারী, লালমনিরহাট

বিষয়: স্বাধীনতা দিবস উদ্‌যাপন উপলক্ষ্যে প্রতিবেদন ।

সূত্র: পা.জি.স্কু/২২(৭)/22

২৩ মার্চ, ২০২২

জনাব,

সম্প্রতি আদিতমারী কে. বি. কলেজে ৫১তম স্বাধীনতা দিবস উদযাপন সম্পর্কে আদিষ্ট হয়ে নিম্নলিখিত প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করছি।

আদিতমারী কে. বি কলেজে স্বাধীনতা দিবস উদ্যাপিত

মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে গত ২৬ মার্চ, ২০২২ আদিতমারী কে. বি. কলেজে দিনব্যাপী কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানের মধ্যে ছিল আলোচনা সভা, মিলাদ মাহফিল, মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা, স্বরচিত কবিতা পাঠের আসর, সংগীতানুষ্ঠান, বিভিন্ন প্রতিযোগিতামূলক খেলাধুলা, রচনা প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। কলেজের অধ্যক্ষ মহোদয়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনাসভার প্রধান অতিথি ছিলেন, বিশিষ্ট ভাষাবিদ অধ্যাপক আবুল কালাম মনজুর মোরশেদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সম্মানিত জেলা প্রশাসক ও পৌরসভার চেয়ারম্যান মহোদয় । আলোচনায় অংশ নেন বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ হারুন-অর-রশীদ।

প্রধান অতিথির ভাষণে আবুল কালাম মনজুর মোরশেদ বলেন, সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বাধীনতা ঘোষণার মধ্য দিয়ে শুরু হয় মুক্তিযুদ্ধ। নয় মাস যুদ্ধের ফসল আজকের বাংলাদেশ। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও বিজয়ের গৌরব নিয়ে আমাদের দেশ ও জাতির কল্যাণে কাজ করে যেতে হবে। ভৌগোলিক স্বাধীনতা এলেও আমাদের জাতীয় জীবনে অর্থনৈতিক মুক্তি আজও মেলেনি। অথচ অর্থনৈতিক মুক্তি ছাড়া দেশের মানুষের ভাগ্যোন্নয়ন সম্ভব নয়।

বিশেষ অতিথির ভাষণে জেলা প্রশাসক বলেন, “স্বাধীনতা অর্জনের চেয়ে স্বাধীনতা রক্ষা করা কঠিন । স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বকে যদি আমরা রক্ষা করতে পারি তাহলেই স্বাধীনতা দিবস উদযাপন অর্থবহ হবে। বিজয়ের গৌরবে অনুপ্রাণিত হয়ে আমাদের দেশ ও জাতি গঠনে কাজ করে যেতে হবে। চেয়ারম্যান মহোদয় তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘স্বাধীনতা আমাদের পরম প্রাপ্তি । আমাদের জাতীয় চেতনায় স্বাধীনতা দিবস তাই অফুরন্ত প্রেরণার উৎস হয়ে থাকবে।'

সভাপতির বক্তব্যে অধ্যক্ষ মহোদয় বলেন, ‘১৯৭১ সালে স্বাধীনতা লাভের আশায় এদেশের মুক্তিকামী মানুষ প্রতিরোধ-আন্দোলন গড়ে তুলেছিল। সেসময় পশ্চিম পাকিস্তানের শাসকদের অন্যায় আচরণ মধ্যযুগীয় বর্বরতাকেও হার মানিয়েছিল। কিন্তু শত অত্যাচার-নিপীড়নও বাঙালি জাতিকে তার কাঙ্ক্ষিত স্বাধীনতা থেকে বঞ্চিত করতে পারেনি। আমাদের এ স্বাধীনতা লাভের পেছনে রয়েছে ত্রিশ লক্ষ শহিদের আত্মদান।' অনুষ্ঠানটিতে অধ্যক্ষ মহোদয়সহ অতিথিদের বক্তব্য সবাইকে দেশাত্মবোধে উজ্জীবিত করে।

সবশেষে খেলাধুলা ও রচনা প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন প্রধান অতিথি আবুল কালাম মনজুর মোরশেদ ।

নিবেদক

আরফাত হোসেন

আহবায়ক স্বাধীনতা দিবস উদযাপন কমিটি; আদিতমারী কে. বি. কলেজ

আর্টিকেলের শেষকথাঃ স্বাধীনতা দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রতিবেদন

আমরা এতক্ষন জেনে নিলাম স্বাধীনতা দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রতিবেদন  টি। যদি তোমাদের আজকের এই পড়াটিটি ভালো লাগে তাহলে ফেসবুক বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিতে পারো। আর এই রকম নিত্য নতুন পোস্ট পেতে আমাদের আরকে রায়হান ওয়েবসাইটের সাথে থাকো।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url

Google News এ আমাদের ফলো করুন

fha loan, va loan, refi, heloc