business loans, commercial loan, auto insurance quotes, motorcycle lawyer

সুলতান মাহমুদের সোমনাথ অভিযান সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা কর

আসসালামু আলাইকুম প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা আজকে বিষয় হলো সুলতান মাহমুদের সোমনাথ অভিযান সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা কর জেনে নিবো। তোমরা যদি পড়াটি ভালো ভাবে নিজের মনের মধ্যে গুছিয়ে নিতে চাও তাহলে অবশ্যই তোমাকে মনযোগ সহকারে পড়তে হবে। চলো শিক্ষার্থী বন্ধুরা আমরা জেনে নেই আজকের সুলতান মাহমুদের সোমনাথ অভিযান সম্পর্কে সংক্ষেপে লিখ।

সুলতান মাহমুদের সোমনাথ অভিযান সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা কর
সুলতান মাহমুদের সোমনাথ অভিযান সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা কর

সুলতান মাহমুদের সোমনাথ অভিযান সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা কর

  • অথবা, সুলতান মাহমুদের সোমনাথ অভিযান সম্পর্কে সংক্ষেপে লিখ ।
  • অথবা, সুলতান মাহমুদ এর সোমনাথ অভিযান সম্পর্কে একটি টিকা লিখ।

উত্তর : ভূমিকা : গজনী বংশে সবুক্তগীনের পর তার পুত্র সুলতান মাহমুদ ভাইকে পরাজিত করে ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হন। ক্ষমতায় আরোহণ করার পর সুলতান মাহমুদ রাজ্য বিজয়ের জন্য মরিয়া হয়ে পড়েন। আর এরই প্রেক্ষিতে তিনি ১৭ বার ভারত অভিযান করেন আর সবকটিতেই জয়ী হন। 

তিনি ১০০০ খ্রিস্টাব্দ থেকে ১০২৭ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত তার অভিযানগুলো পরিচালনা করেন। ১৭ টি অভিযানের মধ্যে তার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে অভিযানটি সেটি হলো সোমনাথ অভিযান। ১০২৬ খ্রিস্টাব্দে সুলতান মাহমুদ সোমনাথ মন্দির আক্রমণ করেন।

সুলতান মাহমুদের সোমনাথ অভিযান : সুলতান মাহমুদের সোমনাথ অভিযান পৃথিবীর ইতিহাসে যতগুলো অভিযান ছিল তার মধ্যে অন্যতম। সুলতান মাহমুদের সোমনাথ অভিযান সম্পর্কে নিম্নে আলোচনা করা হলো :

→ সোমনাথ অভিযান : সোমনাথ অভিযান ইসলামের ইতিহাসের একটি দুঃসাহসিক সামরিক কার্য। সোমনাথ মন্দিরটি কাথিওয়াড়ের পশ্চিম উপকূলে অবস্থিত ছিল। সুলতান মাহমুদ এই বিখ্যাত মন্দিরের ঐশ্বর্যের সংবাদ পেয়ে ধনরত্ন লুণ্ঠন করার জন্য কৃত সংকল্প হয়ে ১০২৫ খ্রিস্টাব্দ বিশাল সৈন্যবাহিনী সহ মুলতানের পথে আজমীরে পৌঁছিলেন। 

আজমীর জয় করে গুজরাট হয়ে ১০২৬ খ্রিস্টাব্দ মাহমুদ সোমনাথ মন্দিরের সম্মুখে উপস্থিত হন। এ সময় বহুসংখ্যক রাজপুত, যোদ্ধা এবং গুজরাটের রাজা ভীম সোমনাথের মন্দির রক্ষার জন্য মাহমুদের বিরুদ্ধে বিশাল সেনাবাহিনী নিয়ে অগ্রসর হন এবং সেখানে তুমুল যুদ্ধে মাহমুদের কাছে তারা পরাজিত হন। কথিত আছে যে প্রায় ৫ হাজার হিন্দু এই যুদ্ধে প্রাণ দিয়েছিলেন ।

আধুনিক ঐতিহাসিক মুহাম্মদ হাবীব তার গ্রন্থে বলেছেন, ব্রাহ্মণ কর্তৃক মাহমুদকে ধনরত্ন প্রদান করিবার ঘটনা অস্বাভাবিক নয় । এই মন্দির হতে অগণিত মণি-মুক্তা, স্বর্ণ-মুদ্রা, বিগ্রহের অলঙ্কারাদি মাহমুদ স্বদেশে নিয়ে যান। ঈশ্বরী প্রসাদ বলেছেন; সোমনাথ বিজয় | মাহমুদের ভাগ্যে নতুন বিজয়ের গৌরব সংযোজিত করে।

উপসংহার : পরিশেষে আমরা বলতে পারি যে, ভারতে ১৭ বার অভিযানকারী গজনীর এই নায়ক কর্তৃক ভারতের সোমনাথ বিজয় ছিল সর্বাপেক্ষা গুরুত্বপূর্ণ। অর্থ-সম্পদ লুণ্ঠন ছিল তার উদ্দেশ্য। সোমনাথ মন্দির ভাঙ্গার সময় মন্দিরের অনেক পূজারী তাকে বাধা দিয়েছিলেন কিন্তু তিনি তাদের কথায় কর্ণপাত না করে বলেছিলেন, 

তিনি পৃথিবীতে বিগ্রহ সৃষ্টিকারীর চেয়ে বিগ্রহ ধ্বংসকারী হিসেবে পরিচিত হয়ে থাকতে চান। তিনি সোমনাথ মন্দির হস্তগত করার পর ধন সম্পদ লুণ্ঠন করেই চলে আসেন। কারণ তার উদ্দেশ্য ছিল শুধু লুণ্ঠন করা রাজত্ব করা নয়।

আর্টিকেলের শেষকথাঃ সুলতান মাহমুদ এর সোমনাথ অভিযান সম্পর্কে একটি টিকা লিখ

আমরা এতক্ষন জেনে নিলাম সুলতান মাহমুদের সোমনাথ অভিযান সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা কর। যদি তোমাদের আজকের এই পড়াটিটি ভালো লাগে তাহলে ফেসবুক বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিতে পারো। আর এই রকম নিত্য নতুন পোস্ট পেতে আমাদের আরকে রায়হান ওয়েবসাইটের সাথে থাকো। 

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url

Google News এ আমাদের ফলো করুন