লেখালেখি করে মাসে ৬ হাজার টাকা ইনকাম

ফেসবুকে লিংক শেয়ার করে ১০০০ টাকা আয়

মানবাধিকার অনুচ্ছেদ রচনা

আসসালামু আলাইকুম প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা আজকে বিষয় হলো মানবাধিকার অনুচ্ছেদ রচনা জেনে নিবো। তোমরা যদি মানবাধিকার অনুচ্ছেদ রচনা টি ভালো ভাবে নিজের মনের মধ্যে গুছিয়ে নিতে চাও তাহলে অবশ্যই তোমাকে মনযোগ সহকারে পড়তে হবে। চলো শিক্ষার্থী বন্ধুরা আমরা জেনে নেই আজকের মানবাধিকার অনুচ্ছেদ রচনা  টি।

মানবাধিকার অনুচ্ছেদ রচনা
মানবাধিকার অনুচ্ছেদ রচনা

মানবাধিকার অনুচ্ছেদ রচনা

জাতিসংঘ স্বীকৃত রাষ্ট্রের দেওয়া মানুষের প্রাপ্য অধিকারগুলােকে মানবাধিকার বলা হয়। ১৯৪৮ সালের ১০ ডিসেম্বর জাতিসংঘের সদস্য রাষ্ট্রসমূহ মানবাধিকারের সর্বজনীন ঘােষণাপত্র অনুমােদন করে। জাতিসংঘের অন্তর্ভুক্ত প্রতিটি রাষ্ট্র ১০ ডিসেম্বর ‘মানবাধিকার দিবস' পালন করে আসছে। কারণ, সুদীর্ঘকাল ধরে পৃথিবীতে মানুষে মানুষে বিভেদ আর হানাহানি হয়ে আসছে জাতি-ধর্ম-বর্ণ-গােত্র ভাষা ইত্যাদিকে কেন্দ্র করে। একই জাতির একই ধর্মের মানুষের মধ্যেও নানা কারণে গােষ্ঠীগত, সম্প্রদায়গত, আধিপত্যগত কারণে দাঙ্গা-হাঙ্গামা ও সংঘাত কম হয়নি। এই প্রেক্ষাপটেই দুটি বিশ্বযুদ্ধ, স্নায়ুযুদ্ধ, অর্থনৈতিক দ্বন্দ্বের অভিজ্ঞতার আলােকে বিশ শতকের মানববিশ্ব সচেতন হয়েছে বিশ্বের শান্তি-শৃঙ্খলা গড়ে তুলতে, মানুষে মানুষে শান্তি, মৈত্রী ও ভ্রাতৃত্বের বন্ধন গড়ে তুলতে। তারই মর্মবাণী মানবাধিকারের ধারণায় অভিব্যক্তি পেয়েছে। সাধারণত মানুষ হিসেবে প্রাপ্য অধিকারগুলােই মানবাধিকার । বাচার, খাদ্যের, বস্ত্রের, বাসস্থানের প্রয়ােজন হলাে মানুষের মৌলিক অধিকার। মানুষের এই অধিকারকে দুভাগে ভাগ করা যেতে পারে ; এক, স নাগরিকত্বের অধিকার। স্বাভাবিক অধিকার অর্থে মানবিকতার জন্য প্রাপ্য অধিকারকে বােঝায়। যেমন : বাঁচার, খাদ্যের, বরে, বাসস্থানের অধিকার, বিবেকের কাছে দায়বদ্ধ থাকার অধিকার। নাগরিক অধিকার হলাে বিচার বিভাগীয় বিষয়জাত। রাষ্ট্রই এই অধিকারগুলাে দেয় এবং তা সুরক্ষিত রাখে। এগুলাে মৌলিক অধিকারের পর্যায়ে পড়ে। মানবাধিকার আজ আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেলেও তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলােতে এবং এশিয়া মহাদেশে মানবাধিকার লঙ্নের ঘটনা উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। সাম্যবাদের আলােকে মানবাধিকার নিশ্চিত করা গেলে সারা পৃথিবীতে মানুষের মুক্তি ও শান্তি প্রতিষ্ঠিত হবে।

আর্টিকেলের শেষকথাঃ মানবাধিকার অনুচ্ছেদ রচনা

আমরা এতক্ষন জেনে নিলাম মানবাধিকার অনুচ্ছেদ রচনা  টি। যদি তোমাদের আজকের এই মানবাধিকার অনুচ্ছেদ রচনা  টি ভালো লাগে তাহলে ফেসবুক বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিতে পারো। আর এই রকম নিত্য নতুন পোস্ট পেতে আমাদের আরকে রায়হান ওয়েবসাইটের সাথে থাকো।

Next Post Previous Post