business loans, commercial loan, auto insurance quotes, motorcycle lawyer

আরবের গোত্রীয় সংগঠনের কেমন ছিল

আসসালামু আলাইকুম প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা আজকে বিষয় হলো আরবের গোত্রীয় সংগঠনের কেমন ছিল জেনে নিবো। তোমরা যদি আরবের গোত্রীয় সংগঠনের কেমন ছিল টি ভালো ভাবে নিজের মনের মধ্যে গুছিয়ে নিতে চাও তাহলে অবশ্যই তোমাকে মনযোগ সহকারে পড়তে হবে। চলো শিক্ষার্থী বন্ধুরা আমরা জেনে নেই আজকের আরবের গোত্রীয় সংগঠনের কেমন ছিল  টি।

আরবের গোত্রীয় সংগঠনের কেমন ছিল
আরবের গোত্রীয় সংগঠনের কেমন ছিল

আরবের গোত্রীয় সংগঠনের কেমন ছিল

উত্তর : ভূমিকা : প্রাক ইসলামি আরবের লােকদের মাঝে আঞ্চলিকতা, জাতীয়তাবােধ ইত্যাদি বিশ্বাস না থাকলেও গণতন্ত্রনীতি ও ব্যক্তিস্বাতন্ত্র্যবােধ ছিল তাদের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য। তারা তাদের | পূর্বপুরুষদের ঐতিহ্যকে স্মরণ করতে বিশেষ গর্ববােধ করতাে। |

আরবদের গােত্রীয় সংগঠন : কেন্দ্রীয় কোনাে শাসনব্যবস্থা থাকায় সমস্ত আরবে শত শত এমনকি হাজার হাজার গােত্র ছিল। গােত্রের যিনি প্রধান তাকে শেখ বলা হতাে। মূলত শেখকেই। কেন্দ্র করে তাদের শাসনব্যবস্থা পরিচালিত হতাে। শেখ কর্তৃক এই শাসনব্যবস্থা শেখতন্ত্র নামে পরিচিত। গােত্রীয় ললাকেরা অতিরিক্ত স্বাধীনতাপ্রিয় থাকার কারণে শেখ তাদের শাসন করার পরিবর্তে তাদের কৃতকর্মের সমর্থন দিতাে। গােত্রপ্রীতি বেদুইনদের একটি উল্লেখযােগ্য চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য। গােত্রের কোনাে লােক কোনাে অন্যায় কাজ করলেও গােত্রের সবাই মিলে তাকে সমর্থন করতে ও সাহায্য করতাে। এমনকি সকলে তার অপরাধের অংশীদারও হতাে।

এ সম্পর্কে জনৈক আরব কবি বলেছেন, “আমাদের কোনাে ভাই যখন আমাদের নিকট সাহায্য প্রার্থনা করে। আমরা তখন | তার নিকট কোনাে কারণ জানতে চাই না এবং অপরাধের কোনাে | কৈফিয়ত তলব করি না।”

তাদের নিজেদের গােত্রের মধ্যে যদি কোন হত্যাকাণ্ড হয় তবে সে হত্যাকারীকে কেউই সাহায্য করতাে না। কিন্তু অন্য কোন গােত্র হলে তারা রক্তের বদলে রক্ত না নিলে তাদের সান্ত্বনা মিলত না।

কোন গােত্রের সদস্যরা গােত্রে তাদের জান ও মালের নিরাপত্তা থাকলে সে গােত্রের প্রতি শ্রদ্ধাশীল ও আনুগত্যশীল থাকা এ আহ্বান জানিয়ে জনৈক কবি বলেন, “গােত্রের প্রতাপ বড় সাংঘাতিক, গােত্র যদি চায় তবে স্বামীকে তার স্ত্রীর তালাক দিতে হয়। বেদুইনদের স্বদেশানুরাগ ও গােত্র মানসিকতার মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল।” 

উপসংহার : পরিশেষে বলা যায় যে, গােত্র ব্যবস্থার দরুণ ইসলাম পূর্ব যুগে আরবে ঝগড়া বিবাদ ও রক্তপাতের অন্ত ছিল না। তাদের | আন্তঃগােত্রীয় সংঘর্ষ বছরের পর বছর ধরে চলত। তবে তাদের গােত্রীয় চেতনা পরবর্তীতে আরাে জাতি গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।।

আর্টিকেলের শেষকথাঃ আরবের গোত্রীয় সংগঠনের কেমন ছিল

আমরা এতক্ষন জেনে নিলাম আরবের গোত্রীয় সংগঠনের কেমন ছিল  টি। যদি তোমাদের আজকের এই আরবের গোত্রীয় সংগঠনের কেমন ছিল  টি ভালো লাগে তাহলে ফেসবুক বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিতে পারো। আর এই রকম নিত্য নতুন পোস্ট পেতে আমাদের আরকে রায়হান ওয়েবসাইটের সাথে থাকো।

Next Post Previous Post