business loans, commercial loan, auto insurance quotes, motorcycle lawyer

প্রাক ইসলামী যুগে আরবের অর্থনৈতিক অবস্থা আলোচনা কর

আসসালামু আলাইকুম প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা আজকে বিষয় হলো প্রাক ইসলামী যুগে আরবের অর্থনৈতিক অবস্থা আলোচনা কর জেনে নিবো। তোমরা যদি প্রাক ইসলামী যুগে আরবের অর্থনৈতিক অবস্থা আলোচনা কর টি ভালো ভাবে নিজের মনের মধ্যে গুছিয়ে নিতে চাও তাহলে অবশ্যই তোমাকে মনযোগ সহকারে পড়তে হবে। চলো শিক্ষার্থী বন্ধুরা আমরা জেনে নেই আজকের প্রাক ইসলামী যুগে আরবের অর্থনৈতিক অবস্থা আলোচনা কর  টি।

প্রাক ইসলামী যুগে আরবের অর্থনৈতিক অবস্থা আলোচনা কর
প্রাক ইসলামী যুগে আরবের অর্থনৈতিক অবস্থা আলোচনা কর

প্রাক ইসলামী যুগে আরবের অর্থনৈতিক অবস্থা আলোচনা কর

উত্তর : ভূমিকা : ইসলামের আবির্ভাবের পূর্বে আরবের অর্থনৈতিক জীবন ছিল চরমভাবে অধঃপতিত। সভ্যতার আলো সে সময় পর্যন্ত তাদের স্পর্শ করেনি। উন্নত উৎপাদন সামগ্রী, সুসংহত কোনাে সরকার না থাকায় তাদের অর্থনৈতিক অবস্থা ছিল একেবারেই শােচনীয়।

ইসলামপূর্ব যুগে আরবের অর্থনৈতিক অবস্থা : মরুময় আরব উপ-দ্বীপের অনুর্বর জমি কৃষিকার্যের সম্পূর্ণ অনুপযোগী ছিল। সামান্য খাদ্য দ্রব্য উৎপন্ন করতে তাদের অনেক কষ্ট করতে হতো ।

১. গরিব যাযাবর : বেদুইন ও গরিব আরববাসীদের আর্থিক অবস্থা অত্যন্ত শোচনীয় ছিল। পশুচারণ করে এবং লুণ্ঠন চালিয়ে তারা কোনোভাবে তাদের জীবিকানির্বাহ করতো। ১০০০-এর উপরে কোনো সংখ্যা ছিল না । যা প্রমাণ করে সে সময় মানুষ কতটা গরিব ছিল ।

২. সুদের ব্যবসা : ইসলাম পূর্বযুগে ধনী আরবগণ বিশেষ করে ইহুদিরা সুদের ব্যবসা করতো। সুদের কারবারের নিয়ম ছিল অত্যন্ত নিষ্ঠুর ও জটিল। সুদ অনাদায়ে ঘাতকের অর্থাৎ গ্রহণকারীরা স্ত্রী, পুত্র, কন্যাকে দাস-দাসী হিসেবে সুদখোর মহাজনদের হাতে চলে যেত ।

৩. কারিগর শ্রেণি : ইহুদি সম্প্রদায় ছাড়া মূর্তি নির্মাতাগণও আর্থিক সচ্ছলতার মধ্যে কালাতিপাত করতো। পৌত্তলিকতার ব্যাপক প্রসারের ফলে দেবদেবী নির্মাণ করে কারিগরগণ ইসলামের আবির্ভাবের প্রাক্কালে সামাজিক মর্যাদাও অর্জন করে।

৪. ব্যবসায়ী শ্রেণি : ধনী ও অবস্থাসম্পন্ন লোকেরা অন্যান্য শহরবাসী আরবগণও দুনিয়ার বিভিন্ন দেশের সঙ্গে ব্যবসায় বাণিজ্যে চালাত। প্রাক ইসলামি যুগে মক্কা বহির্বাণিজ্যের একটি প্রধান কেন্দ্র ছিল। কেননা আরবের উত্তরে ও দক্ষিণে বাণিজ্য পথ অবস্থিত ছিল। মক্কা ও মদিনার সম্পদ ও সমৃদ্ধির জন্য বৈদেশিক বাণিজ্য অনেকাংশে নির্ভরশীল ছিল।

উপসংহার : উপর্যুক্ত আলোচনা থেকে স্পষ্টই মনে হয় যে, প্রাক ইসলামি যুগে ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রচলন থাকলেও অধিকাংশ আরববাসী ছিল খুবই গরিব। আরবদের কিছু সদগুণ থাকলেও ধর্মীয়, সাংস্কৃতিক, অর্থনৈতিক জীবনধারায় কোনো শঠতা ছিল না বরং সামগ্রিক দিক থেকে তারা ছিল নৈরাজ্যপূর্ণ ও অধঃপতিত।

আর্টিকেলের শেষকথাঃ প্রাক ইসলামী যুগে আরবের অর্থনৈতিক অবস্থা আলোচনা কর

আমরা এতক্ষন জেনে নিলাম প্রাক ইসলামী যুগে আরবের অর্থনৈতিক অবস্থা আলোচনা কর টি। যদি তোমাদের আজকের এই প্রাক ইসলামী যুগে আরবের অর্থনৈতিক অবস্থা আলোচনা কর  টি ভালো লাগে তাহলে ফেসবুক বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিতে পারো। আর এই রকম নিত্য নতুন পোস্ট পেতে আমাদের আরকে রায়হান ওয়েবসাইটের সাথে থাকো।

Next Post Previous Post