business loans, commercial loan, auto insurance quotes, motorcycle lawyer

ণ-ত্ব বিধান কাকে বলে ণ-ত্ব বিধানের পাঁচটি নিয়ম

আসসালামু আলাইকুম প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা আজকে বিষয় হলো ণ-ত্ব বিধান কাকে বলে ণ-ত্ব বিধানের পাঁচটি নিয়ম জেনে নিবো। তোমরা যদি ণ-ত্ব বিধান কাকে বলে ণ-ত্ব বিধানের পাঁচটি নিয়ম টি ভালো ভাবে নিজের মনের মধ্যে গুছিয়ে নিতে চাও তাহলে অবশ্যই তোমাকে মনযোগ সহকারে পড়তে হবে। চলো শিক্ষার্থী বন্ধুরা আমরা জেনে নেই আজকের ণ-ত্ব বিধান কাকে বলে ণ-ত্ব বিধানের পাঁচটি নিয়ম  টি।

ণ-ত্ব বিধান কাকে বলে ণ-ত্ব বিধানের পাঁচটি নিয়ম
ণ-ত্ব বিধান কাকে বলে ণ-ত্ব বিধানের পাঁচটি নিয়ম

ণ-ত্ব বিধান কাকে বলে ণ-ত্ব বিধানের পাঁচটি নিয়ম

উত্তর: ণ-ত্ব বিধান : যে বিধান অনুসারে বাংলা ভাষায় ব্যবহৃত তৎসম বা সংস্কৃত শব্দের বানানে ন' (দন্ত্য-ন)-এর স্থানে ‘ণ’ (মূর্ধন্য-ণ) ব্যবহৃত হয়, তাকে ণ-ত্ব বিধান। বলে। অর্থাৎ তৎসম শব্দের বানানে ণ-এর সঠিক ব্যবহারের নিয়মই ণ-ত্ব বিধান। | যেমন : ঋণ, মরণ, ভীষণ ইত্যাদি। 

ণ-ত্ব বিধানের পাঁচটি নিয়ম : 

১. সাধারণভাবে তৎসম শব্দে ঋ, র, ষ-এর পরে মূর্ধন্য-ণ ব্যবহৃত হয়। | উদাহরণ- ঋণ, রণ, উষ্ণ ইত্যাদি।।

২. ‘র’ = র, ঋ, রেফ (), ঋ-কার ( ), র-ফলা (এ) অথবা ‘ক্ষ’-এর পরে যদি ক বর্গের ৫টি (ক খ গ ঘ ঙ) এবং প-বর্গের ৫টি (প ফ ব ভ ম এবং য য় হ – এই ১৩টি বর্ণের যে-কোনাে ১টি বা ২টি বর্ণ থাকে, তবে তার পরেও মূর্ধন্য-ণ হবে। উদাহরণ- অপরাহ্, পরায়ণ, রােপণ, গৃহিণী, প্রাঙ্গণ ইত্যাদি। 

৩. ট-বর্গের ট ঠ ড ঢ- এই চারটি বর্ণের পূর্বে যদি ন ধ্বনি থাকে এবং ওই ‘ন। ধ্বনি-সহযােগে যদি যুক্তবর্ণ তৈরি হয়, তা হলে তা সর্বদা মূর্ধন্য-ণ হবে। উদাহরণ- কণ্টক, কণ্ঠ, দ-, বণ্টন ইত্যাদি। 

৪. উত্তর, পর, পার, রবীন্দ্র, চন্দ্র, নার শব্দের পরে ‘অয়ন’/‘আয়ন’ শব্দ হলে দন্ত্য-ন এর পরিবর্তে মূর্ধন্য-ণ হয়। উদাহরণ- উত্তর + অয়ন = উত্তরায়ণ, পর + অয়ন = পরায়ণ, পার + অয়ন = পারায়ণ, রবীন্দ্র + আয়ন = রবীন্দ্রায়ণ, নার + অয়ন = নারায়ণ ইত্যাদি। 

৫. পরি, ৫, নিরু – এই তিনটি উপসর্গের পরে ণ-ত্ব বিধান অনুসারে দন্ত্য-ন মূর্ধন্য-ণ হয়। উদাহরণ- পরিণত, প্রণাম, নির্ণয় ইত্যাদি।

আর্টিকেলের শেষকথাঃ ণ-ত্ব বিধান কাকে বলে ণ-ত্ব বিধানের পাঁচটি নিয়ম

আমরা এতক্ষন জেনে নিলাম ণ-ত্ব বিধান কাকে বলে ণ-ত্ব বিধানের পাঁচটি নিয়ম  টি। যদি তোমাদের আজকের এই ণ-ত্ব বিধান কাকে বলে ণ-ত্ব বিধানের পাঁচটি নিয়ম  টি ভালো লাগে তাহলে ফেসবুক বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিতে পারো। আর এই রকম নিত্য নতুন পোস্ট পেতে আমাদের আরকে রায়হান ওয়েবসাইটের সাথে থাকো।

Next Post Previous Post