business loans, commercial loan, auto insurance quotes, motorcycle lawyer

Child Labour Essay in English 150, 200, 250, 2000 words

Assalamu Alaikum Dear Students. Today's Topic is child labour essay 2000 words. If you want to get causes of child labour essay Well in Your Mind Then You Must Read Carefully. Let's know Today's Topic english 150 word child labour essay.

Child Labour Essay
Child Labour Essay

Child Labour Essay

Bangladesh is one of the poorest countries of the world. Most people here live below poverty Aline. They cannot afford their basic necessities properly. Here the average family size is big. As many families have low income or less earners than eating mouths, they engage their children in various earning activities to supplement the family income. Thus child labour is on the increase. In fact, child labour has become a serious socio-economic problem of Bangladesh. It is a curse of our society, a satire to our development programmes. 

Labour is a matter of dignity. But child labour is considered a matter of disgrace for a nation, because children are the future of a nation. If childhood is wasted in manual labour, and in shouldering the family need, if the children are deprived of their rights to education and other privileges, they will not be able to lead the nation in future. In effect they become a long-standing burden on the nation.

There are certain causes of child labour. Poverty is the root. cause. As poor people can hardly maintain their family and educate their children, the education of the children is stopped at an early age and they are forced to do various manual labour to support their family. Low pay is another cause of child labour. Often em_ployers offer low pay for certain jobs which the grown ups do not do.

Child labour is a sad reality of modern urban and industrial society. Children are like flowers. At this age they are to go to school and there will be books and pens in their hands. But the tough and cruel reality force many children to leave school or not to go to school at all. Instead' they lake up Ilammer. basket. and handles of rickshaw or,van in their hands, remain unfed, half-clad, and bare-footed. Thus. their sad and heart-rending condition highlight only the distressed condition of the nation. 

Child labour destroys the sweet period of childhood and face the -children with the stark realities of life. Wherever children are employed either it is domestic work or factory work, either it is rickshaw pulling or working in a shop or hotel; they are abused, maltreated paid low and deprived of their due rights by their employer. Children work for longer period, suffer pNrarious mistreatments, work in unhealthy and unfavourable condition, and what is sorrowful, they are not given due wages. Child labour is cheap labour. Many children do the work of the adults, and other do risky and dangerous work, but they do not get any Sympathy or love from anybody. 

Govt. and NGOs should work together to root out this evil from society. For this, poverty alleviation programme must he strengthened and widened. Govt's social security network should also be extended. Strict laws should be enacted and enforced against employing children in manual work. Govt. must ensure that children do not drop out from school and get the rights of education. The rich and able persons of society can also come forward in this regard. 

Children's work should never be desired in a society. Bangladesh is conforming to UNICEF's "say yes to children" programme which includes 15 things for the children. We must try to maintain that and ensure peaceful, carefree, and secured world for our children. Otherwise we will have to suffer in the long run caused from this social problem. 

অনুবাদঃ বাংলাদেশ বিশ্বের অন্যতম দরিদ্র দেশ। এখানকার অধিকাংশ মানুষ দারিদ্র্যের নিচে বাস করে। তারা তাদের মৌলিক চাহিদাগুলো ঠিকমতো দিতে পারছে না। এখানে গড় পরিবারের আকার বড়। অনেক পরিবারের আয় কম বা মুখের খাবারের চেয়ে কম উপার্জনকারী হওয়ায় তারা পরিবারের আয়ের পরিপূরক করতে তাদের সন্তানদের বিভিন্ন উপার্জনমূলক কাজে নিয়োজিত করে। তাই শিশুশ্রম বাড়ছে। প্রকৃতপক্ষে শিশুশ্রম বাংলাদেশের একটি গুরুতর আর্থ-সামাজিক সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এটা আমাদের সমাজের অভিশাপ, আমাদের উন্নয়ন কর্মসূচীর ব্যঙ্গ।

শ্রম একটি মর্যাদার বিষয়। কিন্তু শিশুশ্রম একটি জাতির জন্য কলঙ্কজনক বিষয় হিসেবে বিবেচিত হয়, কারণ শিশুরাই একটি জাতির ভবিষ্যৎ। কায়িক শ্রমে শৈশব নষ্ট হলে, পরিবারের প্রয়োজন মেটাতে গিয়ে, শিশুরা যদি শিক্ষার অধিকার ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়, তাহলে তারা ভবিষ্যতে জাতিকে নেতৃত্ব দিতে পারবে না। কার্যত তারা জাতির উপর দীর্ঘস্থায়ী বোঝা হয়ে দাঁড়ায়।

শিশুশ্রমের কিছু নির্দিষ্ট কারণ রয়েছে। দারিদ্র্যই মূল। কারণ দরিদ্র লোকেরা খুব কমই তাদের পরিবার পরিচালনা করতে এবং তাদের সন্তানদের লেখাপড়া করতে পারে না, তাই অল্প বয়সেই শিশুদের লেখাপড়া বন্ধ হয়ে যায় এবং তারা তাদের পরিবারের ভরণপোষণের জন্য বিভিন্ন কায়িক শ্রম করতে বাধ্য হয়। কম বেতন শিশুশ্রমের আরেকটি কারণ। প্রায়শই নিয়োগকারীরা কিছু কাজের জন্য কম বেতনের প্রস্তাব দেয় যা বড়রা করে না।

শিশুশ্রম আধুনিক নগর ও শিল্প সমাজের একটি করুণ বাস্তবতা। শিশুরা ফুলের মতো। এই বয়সে তাদের স্কুলে যেতে হবে এবং তাদের হাতে বই-কলম থাকবে। কিন্তু কঠিন ও নিষ্ঠুর বাস্তবতা অনেক শিশুকে স্কুল ছাড়তে বা একেবারেই স্কুলে যেতে বাধ্য করে না। পরিবর্তে 'তারা ইলামার লেক আপ করে। ঝুড়ি এবং তাদের হাতে রিকশা বা ভ্যানের হ্যান্ডেল, খালি, আধপোড়া এবং খালি পায়ে থাকে। এভাবে। তাদের করুণ ও হৃদয়বিদারক অবস্থা শুধু জাতির দুরবস্থাকেই তুলে ধরে।

শিশুশ্রম শৈশবের মধুর সময়কে নষ্ট করে দেয় এবং জীবনের কঠিন বাস্তবতার সাথে শিশুদের মুখোমুখি হয়। যেখানেই শিশুদের চাকুরী করা হয় তা হয় ঘরোয়া কাজ বা কারখানার কাজ, হয় রিকশা চালানো বা দোকান বা হোটেলে কাজ করা; তারা তাদের নিয়োগকর্তার দ্বারা নির্যাতিত হয়, কম বেতনে অত্যাচার করা হয় এবং তাদের প্রাপ্য অধিকার থেকে বঞ্চিত হয়। শিশুরা দীর্ঘ সময় ধরে কাজ করে, বিভিন্ন দুর্ব্যবহার সহ্য করে, অস্বাস্থ্যকর ও প্রতিকূল অবস্থায় কাজ করে এবং যা দুঃখজনক, তাদের উপযুক্ত মজুরি দেওয়া হয় না। শিশুশ্রম হল সস্তা শ্রম। অনেক শিশু বড়দের কাজ করে, এবং অন্যরা ঝুঁকিপূর্ণ এবং বিপজ্জনক কাজ করে, কিন্তু তারা কারো কাছ থেকে কোনো সহানুভূতি বা ভালোবাসা পায় না।

সরকার এবং এনজিওদের উচিত সমাজ থেকে এই মন্দকে নির্মূল করতে একসঙ্গে কাজ করা। এ জন্য দারিদ্র্য বিমোচন কর্মসূচি জোরদার ও প্রসারিত করতে হবে। সরকারের সামাজিক নিরাপত্তা নেটওয়ার্কও বাড়াতে হবে। শিশুদের কায়িক পরিশ্রমে নিয়োগের বিরুদ্ধে কঠোর আইন প্রণয়ন ও প্রয়োগ করতে হবে। সরকার শিশুরা যাতে স্কুল থেকে ঝরে না পড়ে এবং শিক্ষার অধিকার পায় তা নিশ্চিত করতে হবে। সমাজের বিত্তবান ও সক্ষম ব্যক্তিরাও এ ব্যাপারে এগিয়ে আসতে পারেন।

সমাজে শিশুদের কাজ কখনই কাম্য হওয়া উচিত নয়। বাংলাদেশ ইউনিসেফের "শিশুদের হ্যাঁ বলুন" প্রোগ্রামের সাথে সামঞ্জস্য করছে যাতে শিশুদের জন্য 15টি জিনিস অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। আমাদের অবশ্যই তা বজায় রাখার চেষ্টা করতে হবে এবং আমাদের শিশুদের জন্য শান্তিপূর্ণ, উদ্বেগমুক্ত এবং সুরক্ষিত বিশ্ব নিশ্চিত করতে হবে। অন্যথায় এই সামাজিক সমস্যার কারণে দীর্ঘমেয়াদে আমাদের ভুগতে হবে।

The End Of The Article: child labour essay in english 250 words ielts

We Have Learned So Far solution for child labour essay. If You Like Today's prevention of child labour essay, You Can Share it With Your Facebook Friends. And Stay With Our RK Raihan Website To Get Daily New Posts Like This. Child Labour Essay in English 150, 200, 250, 2000 words, how to stop child labour essay, child labour essay 2000 words, causes of child labour essay, english 150 word child labour essay, child labour essay in english 250 words ielts, solution for child labour essay, prevention of child labour essay, child labour essay paragraph, child labour essay 150 words, child labour essay pdf, child labour essay for class 6, class 7 child labour essay in english, child labour essay in hindi, 150 word child labour essay, child labour essay 200 words

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url