business loans, commercial loan, auto insurance quotes, motorcycle lawyer

অবিভক্ত বাংলা বলতে কি বুঝ

আসসালামু আলাইকুম প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা আজকে বিষয় হলো অবিভক্ত বাংলা বলতে কি বুঝ জেনে নিবো। তোমরা যদি অবিভক্ত বাংলা বলতে কি বুঝ টি ভালো ভাবে নিজের মনের মধ্যে গুছিয়ে নিতে চাও তাহলে অবশ্যই তোমাকে মনযোগ সহকারে পড়তে হবে। চলো শিক্ষার্থী বন্ধুরা আমরা জেনে নেই আজকের অবিভক্ত বাংলা বলতে কি বুঝ  টি।

অবিভক্ত বাংলা বলতে কি বুঝ
অবিভক্ত বাংলা বলতে কি বুঝ

অবিভক্ত বাংলার পরিচয় দাও । অথবা, অবিভক্ত বাংলা বলতে কি বুঝ

উত্তর : ভূমিকা : প্রাচীনকাল থেকে পূর্ব ভারতের যে বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে বাঙালি জনগোষ্ঠীর বসবাস ছিল আজকের বাংলাদেশ তার একটি অংশমাত্র। তবে ১৯৪৭ সালের পূর্বে বাংলা ছিল বেঙ্গল প্রেসিডেন্সি, বেঙ্গল, বেঙ্গলা, সুবে বাংলা, বাঙ্গালা, বঙ্গাল, বঙ্গসহ বিভিন্ন জনপদে বিভক্ত। ব্রিটিশ শাসনামলে বাংলা প্রদেশ ছিল সর্ববৃহৎ প্রদেশ যা ১৯৪৭ এর দেশভাগে দ্বিখণ্ডিত হয় ।

অবিভক্ত বাংলা : প্রাচীনকালে বাংলা নামে কোনো একক রাষ্ট্রকাঠামো ছিল না। বাংলা ভূ-খণ্ডটি বঙ্গ, হরিকেল, সমতট, পুণ্ড্র, বরেন্দ্র, রাঢ় ইত্যাদি নামে বিভক্ত ছিল। তথাপি মৌর্য, গুপ্ত, পাল ও সেন শাসনামলে প্রাচীন বাংলার একটি শক্তিশালী রাজনৈতিক স্বতন্ত্রতার পরিচয় পাওয়া যায়। মধ্যযুগের শুরুতে বাংলা দিল্লির অধীনস্থ থাকলেও পরবর্তীতে দু'শো বছর স্বাধীন সুলতানি আমলের সূচনা ঘটে। চতুর্দশ শতকের মধ্যভাগে ইলিয়াছ শাহী বংশের প্রতিষ্ঠাতা সুলতান শামসুদ্দিন ইলিয়াছ শাহ লখনৌতি, সোনারগাঁও, সাতগাঁও তিনটি অঞ্চলকে একত্রিত করে বাঙ্গালা নামে অভিহিত করেন পরবর্তীতে মোঘল যুগে বাংলা, বিহার, উড়িষ্যা ও আসামসহ এক বিস্তীর্ণ অঞ্চলরূপে বাংলা শাসিত হয়েছে। পলাশির যুদ্ধে নবাব সিরাজউদৌল্লা পরাজিত হলে বাংলার উপর ইস্ট-ইন্ডিয়া কোম্পানি দেওয়ানি লাভ করে এবং ১৮৫৭ সালে সিপাহি বিদ্রোহের ফলশ্রুতিতে বাংলা ব্রিটিশ ভারতের একটি বৃহত্তম প্রদেশে ‘বেঙ্গল প্রেসিডেন্সি' নামে পরিণত হয়। তবে বাংলা, বিহার, উড়িষ্যা নিয়ে গঠিত বাংলা প্রদেশ বা Bengal Presidency এর রাজধানী ছিল কলকাতায় এবং একটি ছিল ব্রিটিশ ভারতের বৃহত্তম প্রদেশ। ১৯০৫ সালে লর্ড কার্জন বিভিন্ন কারণে এই অবিভক্ত বাংলাকে দু'ভাগে বিভক্ত করলে স্বার্থবাদী হিন্দু বেনিয়াদের প্রবল বিরোধিতায় তা ১৯১১ সালে রদ হয়ে যায় কিন্তু ১৯৪৭ সালের দেশ ভাগের সময় সোহরাওয়ার্দী অভিভক্ত বাংলা রাষ্ট্র গঠনের উদ্যোগ নিলেও তা কংগ্রেস ও মুসলিম লীগের হাই কমান্ডের তোপের মুখে ব্যর্থতার পর্যবসিত হয়। ১৯৪৭ সালে বাংলা দু'ভাগে বিভক্ত হয়ে যায় ।

উপসংহার : পরিশেষে বলা যায় যে, মধ্য ও আধুনিক যুগের কাল পর্বে বাংলা একটি স্বতন্ত্র সত্তায় বিকশিত হলেও তা ১৯৪৭ সালের দেশ বিভাগের ফলে উপমহাদেশে অখণ্ড বাংলার স্বপ্ন ধূলিসাৎ হয়ে যায় ।

আর্টিকেলের শেষকথাঃ অবিভক্ত বাংলা বলতে কি বুঝ

আমরা এতক্ষন জেনে নিলাম অবিভক্ত বাংলা বলতে কি বুঝ  টি। যদি তোমাদের আজকের এই অবিভক্ত বাংলা বলতে কি বুঝ  টি ভালো লাগে তাহলে ফেসবুক বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিতে পারো। আর এই রকম নিত্য নতুন পোস্ট পেতে আমাদের আরকে রায়হান ওয়েবসাইটের সাথে থাকো।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url