business loans, commercial loan, auto insurance quotes, motorcycle lawyer

বুয়াইয়া কারা

আসসালামু আলাইকুম প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা আজকে বিষয় হলো বুয়াইয়া কারা জেনে নিবো। তোমরা যদি পড়াটি ভালো ভাবে নিজের মনের মধ্যে গুছিয়ে নিতে চাও তাহলে অবশ্যই তোমাকে মনযোগ সহকারে পড়তে হবে। চলো শিক্ষার্থী বন্ধুরা আমরা জেনে নেই আজকের বুয়াইয়াদের সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা কর।

বুয়াইয়া কারা
বুয়াইয়া কারা

বুয়াইয়া কারা

  • অথবা, বুয়াইয়াদের সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা কর । 
  • অথবা, বুয়াইয়াদের পরিচয় দাও।

উত্তর : ভূমিকা : দশম শতাব্দীর মাঝামাঝি থেকে একাদশ শতাব্দীর মাঝামাঝি পর্যন্ত প্রায় এক শতাব্দী বুয়াইয়া বংশ বাগদাদের আব্বাসীয় খিলাফত পরিচালনা করেন। এ সময় আব্বাসীয় খিলাফতের সবচেয়ে দুর্ভাগ্যজনক অধ্যায়ের সূচনা হয়। -আব্বাসীয় সাম্রাজ্য যখন ধ্বংস প্রায় তখন বুয়াইয়ারা ক্ষমতা লাভ করে ৯৪৫ খ্রিস্টাব্দ থেকে ১০৫৫ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত রাজত্ব করেন।

→ বুয়াইয়াদের পরিচয় : বুয়াইয়াগণ মধ্যে এশিয়ার একটি উপজাতি। তারা কাস্পিয়ান সাগরের দক্ষিণ উপকূলে পারস্যের তাবারিস্তান ও গীলানের মধ্যবর্তী ভূ-ভাগে দাইলাম নামক স্থানে বসবাস করতেন। 

দশম শতাব্দীর প্রথম দিকে এ বংশের আবু সুজা বোখারার সামানীয় রাজবংশের অধীনে চাকরি গ্রহণ করেন । প্রাচীন সামানী রাজবংশের উত্তরাধিকারিত্ব দাবি করে আবু সুজা বুয়াইয়া উপধি ধারণ করে তার ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে থাকেন। 

আহমদ, আলী এবং হাসান নামে আবু সুজার তিনজন পুত্র ছিলেন। তারা ৯৩৪-৯৩৬ সালের, মধ্য দক্ষিণ দিকে অভিযান চালিয়ে সিরাজ, ইস্পাহান, খুজিস্তান কিরমান, আহওয়াজ প্রভৃতি স্থান সামানীয়দের নিকট হতে দখল করে একটি স্বাধীন রাষ্ট্র গঠন করেন। 

অধিকৃত অঞ্চলে রাজধানী প্রতিষ্ঠিত হয় সিরাজের এ সময় বাগদাদের খলিফা মুসতাকফি তুর্কিদের নাগপাশ হতে মুক্ত হতে বুয়াইয়াদের আমন্ত্রণ জানালে খলিফার ডাকে সাড়া দিয়ে আবু সুজা বুয়াইয়াদের কনিষ্ঠপুত্র আহমদ বাগদাদে প্রবেশ করেন। 

ফলে তুর্কিরা ভয়ে পালিয়ে যান। খলিফা তাকে ত্রাণকর্তা রূপে গ্রহণ করেন। এভাবে বাগদাদে এসে ৯৪৫ সালে আহমদ যে বংশ প্রতিষ্ঠা করেন তা তার বাবা আৰু সুজা বুয়াইয়া নামানুসারে বুয়াইয়া বংশ নামে পরিচিত হয়।

উপসংহার : পরিশেষে বলা যায় যে, আব্বাসীয় খিলাফতের সময় বুয়াইয়াদের ক্ষমতা দখল ইতিহাসে একটি দুর্ভাগ্যজনক অধ্যায়। দশম শতাব্দীর মধ্যভাগে আবু সুজা বুয়াইয়া যে বংশ প্রতিষ্ঠা করেন সেটি ইসলামের ইতিহাসে বুয়াইয়া রাজবংশ নামে পরিচিত।

আর্টিকেলের শেষকথাঃ বুয়াইয়াদের সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা কর

আমরা এতক্ষন জেনে নিলাম বুয়াইয়াদের পরিচয় দাও। যদি তোমাদের আজকের এই পড়াটিটি ভালো লাগে তাহলে ফেসবুক বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিতে পারো। আর এই রকম নিত্য নতুন পোস্ট পেতে আমাদের আরকে রায়হান ওয়েবসাইটের সাথে থাকো। 

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url

Google News এ আমাদের ফলো করুন