business loans, commercial loan, auto insurance quotes, motorcycle lawyer

হেপাটাইটিস বি প্রতিরোধের উপায় | হেপাটাইটিস বি থেকে মুক্তির উপায়

 আসসালামু আলাইকুম প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা আজকে বিষয় হলো হেপাটাইটিস বি প্রতিরোধের উপায় | হেপাটাইটিস বি থেকে মুক্তির উপায় তোমাকে মনযোগ সহকারে পড়তে হবে। চলো শিক্ষার্থী বন্ধুরা আমরা জেনে নেই আজকের হেপাটাইটিস বি প্রতিরোধের উপায় | হেপাটাইটিস বি থেকে মুক্তির উপায় ।

হেপাটাইটিস বি প্রতিরোধের উপায়  হেপাটাইটিস বি থেকে মুক্তির উপায়
হেপাটাইটিস বি প্রতিরোধের উপায়  হেপাটাইটিস বি থেকে মুক্তির উপায়

হেপাটাইটিস বি প্রতিরোধের উপায় | হেপাটাইটিস বি থেকে মুক্তির উপায়

  • হেপাটাইটিস বি প্রতিরোধ ও চিকিৎসা পদ্ধতি আলোচনা কর।
  • অথবা, হেপাটাইটিস বি প্রতিরোধ ও চিকিৎসা পদ্ধতি বিশ্লেষণ কর ।

উত্তর : ভূমিকা : হেপাটাইটিস বি একটি যৌনবাহিত রোগ। প্রধান তিন ধরনের হেপাটাইটিসের মধ্যে হেপাটাইটিস বি অন্যতম। 

১৯৬৫ সালে অস্ট্রেলিয়ার এক অধিবাসীর রক্তে প্রথম হেপাটাইটিস বি ধরা পড়ে। বর্তমানে বিশ্বে প্রায় কোটি কোটি মানুষ এ ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত । 

বাংলাদেশে ও প্রায় ২ কোটি লোক হেপাটাইটিস বি ভাইরাস আক্রান্ত। এর ভয়বহতা খুবই খারাপ মোটামুটি অধিকাংশ আক্রান্ত ব্যক্তিটি মৃত্যুর দিকে ঝুঁকতে থাকে ।

→ হেপাটাইটিস বি চিকিৎসা/করণীয়সমূহ :

১. হাসপাতাল রোগীর প্রতিবন্ধকতামূলক শুশ্রুষা Barrie Nursting করতে হবে।

২. সক্রিয় বি ভাইরাসের আক্রান্ত ব্যক্তিকে পৃথক রেখে, উপযুক্ত বিশ্রামের ব্যবস্থা করতে হবে।

৩. আক্রান্ত হলে অতিসত্বর বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের চিকিৎসা ও পরামর্শ নিতে হবে।

৪. রোগীকে সমস্ত অপ্রয়োজনীয় ঔষধ বন্ধ করে দিতে হবে। বিশেষ করে যেসব ঔষধ যকৃতের ক্ষতি করে বা পান্ডুরোগ সৃষ্টি করতে পারে তা দেওয়া চলবে না ।

৫. বমির ঔষধ অন্টোরোয়েড প্রদাহ রোধক ঔষধ নিরোধক বড়ি ব্যথানাশক হিসেবে কম মাত্রায় একটা সিনোফাম (Aclaminopham) ব্যবহার করা যেতে পারে।

৬. মদ্যপান ও ব্যায়াম নিষেধ করতে হবে।

৭. তীব্র যকৃৎ প্রদাহ বি এর কোনো ভাইরাস বিরোধী আলাদা ইন্টারফেরন (a Interferon) দেখা যায় ।

৮. জাবর থাকলে নির্দিষ্ট কিছু অ্যান্টিবায়োটিক খাওয়া যেতে পারে । তবে নাপা, হিস্টাসিন, নাপা এক্সট্রা জাতীয় ঔষধ পরিহার করতে হবে।

৯. বিভিন্ন ধরনের মাল্টি ভিটামিন খাওয়া যেতে পারে। 

১০. পর্যাপ্ত পরিমাণে বিশুদ্ধ পানি পান করতে হবে। 

১১. প্রচুর তরল খাদ্য গ্লুকোজ ফলের রস খাওয়া যেতে পারে । 

হেপাটাইটিস বি প্রতিরোধ ব্যবস্থা :

১. সবসময় স্বাস্থ্যসম্মত সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে । 

২. পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে।

৩. বি ভাইরাস আক্রান্ত ব্যক্তির পরিচর্যা রক্ত, রক্তস্রোত কাপড় বা যন্ত্রপাতি নাড়াচারার সময় হুশিয়ার থাকতে হবে।

৪. ভাইরাস বা বাহকদের স্বাস্থ্যসম্মত জীবনযাপন সম্পর্কে পরামর্শ দিতে হবে ।

৫. এক রোগীর সার্জারি করার পর ব্যবহৃত যন্ত্রপাতি জীবাণুমুক্ত করার পর অন্যের জন্য ব্যবহার করতে হবে।

৬. অন্যের ব্যবহৃত ব্লেড, ক্ষুর, কাঁচি ইত্যাদি ব্যবহার করা যাবে না । 

৭. প্রতিবার ইনজেকশনের সময় নতুন সিরিঞ্জ ব্যবহার করতে হবে। 

৮. সময়মত হেপাটাইটিস বি এর টিকা নিতে হবে। 

৯. রক্ত গ্রহণের সময় তাতে ভাইরাস আছে কি না তা পূর্বের পরীক্ষা করে নিতে হবে ।

১০. অবাধ ও অনিরাপদ দৈহিক মিলন থেকে বিরত থাকতে হবে ।

১১. দৈহিক মিলনের সময় কনডম ব্যবহার করতে হবে। হেপাটাইটিস বি প্রতিরোধ ভ্যাকসিন অত্যন্ত কার্যকর ভূমিকা পালন করে। 

হেপাটাইটিসে আক্রান্ত মায়ের এবং সন্তানসন্ততি স্বামী সবারই হেপাটাইটিস বি এর ভ্যাকসিন নেয়া খুবই দরকার। ছোট শিশুদের হেপাটাইটিস বি এর ভ্যাকসিন হিসেবে পোস্টভ্যালেন্ট টিকা ব্যবহার করা যায়। 

এমনকি নবজাতক থেকে পূর্ণবয়স্ক পর্যন্ত টিকা দেওয়া যায়। কিন্তু যেসকল লোকের এইচ বি এস পজিটিভ তাদেরকে এ টিকা দেওয়া যায় না। 

চিকিৎসক পরীক্ষার মাধ্যমে জানতে পারবে তার এইচ বি এন পজিটিভ কিনা। যারা হেপাটাইটিস বি আক্রান্ত তারা মাঝে মাঝে লিভার সিরোসিস বা ক্যান্সার না হওয়া পর্যন্ত যেকোনো সমস্যা অনুভব করে না। সেক্ষেত্রে রোগীকে ঠিকভাবে সাহায্য করা যায় না।

বর্তমানে সময়ে হেপাটাইটিস বি আর কোনো দুরারোগ্য ব্যাধি নয় । তখন যদি হেপাটাইটিস সিরোসিস বা লিবার ক্যান্সার হওয়ার আগে ধরা পরে তবে রোগাক্রান্ত ব্যক্তি পুরোপুরি সুস্থ হবার সম্ভাবনা খুবই বেশি। 

পৃথিবীতে এ ভাইরাসের অনেক কার্যকর ঔষধ রয়েছে। এগুলোর মধ্যে রয়েছে পেসেসিস, ইন্টারফেন ল্যামিভুডিন, এফ্রিডোভির আর সর্বশেষ সংযোজন টেলিভুডিন। 

বর্তমান এ সকল বাংলাদেশেও পাওয়া যাচ্ছে। সঠিক সময় সঠিক ঔষধ দিলেও রোগ থেকে মুক্ত হওয়া যায় ।

উপসংহার : পরিশেষে বলা যায় যে, হেপাটাইটিস বি ভাইরাসটি খুবই মারাত্মক। এ ভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তি খুবই ঝুঁকিপূর্ণ জীবনযাপন করে। 

এ ভাইরাস আক্রান্ত হবার ফলে লিভার সিরোসিস ও ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু লিভার সিরোসিস বা ক্যান্সরের আগে ধরা পড়লে পুরোপুরি সুস্থ করা যায় ।

আর্টিকেলের শেষকথাঃ হেপাটাইটিস বি প্রতিরোধের উপায় | হেপাটাইটিস বি থেকে মুক্তির উপায়

আমরা এতক্ষন জেনে নিলাম হেপাটাইটিস বি প্রতিরোধের উপায় | হেপাটাইটিস বি থেকে মুক্তির উপায় । যদি তোমাদের আজকের এই পড়াটিটি ভালো লাগে তাহলে ফেসবুক বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিতে পারো। আর এই রকম নিত্য নতুন পোস্ট পেতে আমাদের আরকে রায়হান ওয়েবসাইটের সাথে থাকো।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url

Google News এ আমাদের ফলো করুন

fha loan, va loan, refi, heloc