business loans, commercial loan, auto insurance quotes, motorcycle lawyer

নারীবাদী আন্দোলনের কয়েকটি কারণ লিখ

আসসালামু আলাইকুম প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা আজকে বিষয় হলো নারীবাদী আন্দোলনের কয়েকটি কারণ লিখ জেনে নিবো। তোমরা যদি পড়াটি ভালো ভাবে নিজের মনের মধ্যে গুছিয়ে নিতে চাও তাহলে অবশ্যই তোমাকে মনযোগ সহকারে পড়তে হবে। চলো শিক্ষার্থী বন্ধুরা আমরা জেনে নেই আজকের নারীবাদী আন্দোলনের কয়েকটি কারণ উল্লেখ কর।

নারীবাদী আন্দোলনের কয়েকটি কারণ লিখ
নারীবাদী আন্দোলনের কয়েকটি কারণ লিখ

নারীবাদী আন্দোলনের কয়েকটি কারণ লিখ

  • অথবা, নারীবাদী আন্দোলনের কয়েকটি কারণ উল্লেখ কর। 
  • অথবা, নারীবাদী আন্দোলনের কয়েকটি কারণ বর্ণনা কর ।

উত্তর : ভূমিকা : একটি সমাজ বা দেশের অর্ধেক জনশক্তি হচ্ছে নারী। তাই তাকে অবমূল্যায়ন করে কোন জাতি উন্নতির শীর্ষ শিখরে আরোহণ করতে পারে না। কিন্তু যুগ যুগ ধরে শক্তিশালী পুরুষতন্ত্রের কাছে আমাদের নারী সমাজ অত্যাচারিত ও নির্যাতিত হয়ে এসেছে। 

ফলে দীর্ঘ অত্যাচার নির্যাতনের ফলে নারীদের মধ্যে এক ধরনের ক্ষোভ ও প্রতিহিংসার জন্ম হয়েছিল। তারই উপর ভিত্তি করে বিংশ শতাব্দীর শেষ দিকে সমগ্র বিশ্বে ব্যাপক নারীবাদী আন্দোলনের সূচনা হয়। নিম্নে প্রশ্নালোকে নারীবাদী আন্দোলনের প্রধান কয়েকটি কারণ আলোচনা করা হলো :

১. পুরুষতান্ত্রিকতা : বিংশ শতাব্দীর আগে বিশ্বের অধিকাংশ দেশেই শক্তিশালী পুরুষতন্ত্র বিদ্যমান ছিল। আর পুরুষতন্ত্রের কবলে পড়ে নারী সমাজ তাদের অধিকার ও মর্যাদা থেকে বঞ্চিত হয়েছিল। ফলে দীর্ঘদিনের অত্যাচার নির্যাতনের ফলে নারী মনে যে ক্ষোভের জন্ম হয় তারই বহিঃপ্রকাশ হলো নারীবাদী আন্দোলন ।

২. দারিদ্র্যতা : উন্নয়নশীল ও তৃতীয় বিশ্বের অধিকাংশ দেশে নারীরা পিছিয়ে পড়ার অন্যতম প্রধান কারণ হলো দারিদ্র্যতা। দারিদ্র্যতার কারণে নারীরা পুরুষের বিভিন্ন অত্যাচার, নির্যাতন এর শিকার হন। 

যৌতুকসহ অন্যান্য নারী নির্যাতনের কারণ এই দারিদ্র্যতা। ফলে দারিদ্র্যতার বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে গিয়ে গড়ে উঠে নারীবাদী আন্দোলন ।

৩. নারীদের নিরক্ষরতা : বিশ্বের সমাজব্যবস্থা পূর্বে কৃষি অর্থনীতি নির্ভর থাকায় এখানে মেয়েদের চেয়ে ছেলে শিশুকে বেশি প্রাধান্য দেয়া হতো। ফলে পরিবারের ছেলে শিশুর শিক্ষার জন্য 

যে তৎপরতা লক্ষ্য করা যায় মেয়ে শিশুর শিক্ষার জন্য তেমন গুরুত্বারোপ করা হয় না। ফলে নারীরা দীর্ঘদিনের এই নিরক্ষরতার ক্ষোভ থেকে নারীবাদী আন্দোলন গড়ে তোলে ।

৪. নারী পুরুষের বৈষম্য : সমাজব্যবস্থায় নারী ও পুরুষের মধ্যে যে তীব্র বৈষম্য লক্ষ্য করা যায় তাও নারীবাদী আন্দোলন গড়ে উঠার পেছনে দায়ী। 

কারণ একই কারখানার পুরুষ ও নারী শ্রমিকের মজুরিতে বৈষম্য, পরিবারের ছেলে মেয়ের মধ্যে বৈষম্য, শিক্ষা স্বাস্থ্যসহ আরো নানা বৈষম্যের কারণে এই নারীবাদী আন্দোলন দানা বেঁধে উঠে ।

৫. সুবিচারের অভাব : আমাদের বিচার ব্যবস্থায় পুরুষদের প্রাধান্য থাকায় তা নারীবান্ধব নয় । তাই পুরুষদের দ্বারা অত্যাচারিত হয়ে নারীরা বিচার চাইলেও তারা সুবিচার পেত না। ফলে পুরুষ নিয়ন্ত্রিত বিচার ব্যবস্থার প্রতি তীব্র ঘৃণা বিদ্বেষ থেকে বেড়ে উঠে নারীবাদী আন্দোলন

উপসংহার : পরিশেষে বলা যায় যে, আমাদের সমাজব্যবস্থা যেহেতু পুরুষ নিয়ন্ত্রিত ছিল তাই এখানে নারীরা শিক্ষা, স্বাস্থ্য, অন্যান্য জীবন-যাপনের মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত ছিল দীর্ঘকাল। ফলে তাদের মধ্যে যে ক্ষোভ ও ক্রোধের জন্ম হয়, তা থেকেই সৃষ্টি হয় ব্যাপক নারীবাদী আন্দোলন।

আর্টিকেলের শেষকথাঃ নারীবাদী আন্দোলনের কয়েকটি কারণ বর্ণনা কর

আমরা এতক্ষন জেনে নিলাম নারীবাদী আন্দোলনের কয়েকটি কারণ লিখ। যদি তোমাদের আজকের এই পড়াটিটি ভালো লাগে তাহলে ফেসবুক বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিতে পারো। আর এই রকম নিত্য নতুন পোস্ট পেতে আমাদের আরকে রায়হান ওয়েবসাইটের সাথে থাকো। 

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url

Google News এ আমাদের ফলো করুন

fha loan, va loan, refi, heloc