business loans, commercial loan, auto insurance quotes, motorcycle lawyer

সংস্কৃতির অসম অগ্রগতি কি | সংস্কৃতির অসম অগ্রগতি কাকে বলে

 আসসালামু আলাইকুম প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা আজকে বিষয় হলো সংস্কৃতির অসম অগ্রগতি কি | সংস্কৃতির অসম অগ্রগতি কাকে বলে জেনে নিবো। তোমরা যদি পড়াটি ভালো ভাবে নিজের মনের মধ্যে গুছিয়ে নিতে চাও তাহলে অবশ্যই তোমাকে মনযোগ সহকারে পড়তে হবে। চলো শিক্ষার্থী বন্ধুরা আমরা জেনে নেই আজকের সংস্কৃতির অসম অগ্রগতি কি | সংস্কৃতির অসম অগ্রগতি কাকে বলে ।

সংস্কৃতির অসম অগ্রগতি কি  সংস্কৃতির অসম অগ্রগতি কাকে বলে
সংস্কৃতির অসম অগ্রগতি কি | সংস্কৃতির অসম অগ্রগতি কাকে বলে

সংস্কৃতির অসম অগ্রগতি কি | সংস্কৃতির অসম অগ্রগতি কাকে বলে

উত্তর : ভূমিকা : সংস্কৃতি মানবজীবনের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত এবং দৈনন্দিন জীবনে এর প্রভাব অত্যন্ত বেশি। 

সমাজে সংস্কৃতির প্রধান দুটি দিক তথা বস্তুগত ও অবস্তুগত সংস্কৃতির মধ্যে যদি পারস্পরিক সম্পর্ক বিদ্যমান থাকে সমাজের স্বাভাবিক গতি ও ভারসাম্য ত্বরান্বিত হয়। সমাজের এ অংশগুলো যদি আনুপাতিক হারে ত্বরান্বিত না হয় তখন সমাজে অসম অগ্রগতি তৈরি হয় ।

→ সংস্কৃতির অসম অগ্রগতি : ১৯২২ সালে সমাজবিজ্ঞানী WF ogbron তাঁর "Social change" নামক গ্রন্থে এই Cultural Leg নামে একটি Theory প্রদান করেন। 

ogbum বলেন, বস্তুগত সংস্কৃতি যদি দ্রুত পরিবর্তন হয় অবস্তুগত সংস্কৃতি ততো দ্রুত পরিবর্তন হয় না। ফলে দুই সংস্কৃতির মধ্যে একটি ব্যবধান সৃষ্টি হয় । Ogburnu এই তত্ত্বটি একটি Diagram এ দেওয়া হলো-

→ সংস্কৃতির অসম অগ্রগতির কারণ : সংস্কৃতির অসম অগ্রগতির বেশ কিছু কারণ রয়েছে। Ogburn ও Nimkoff তাঁদের গ্রন্থে সংস্কৃতির অসম অগ্রগতির বেশ কিছু কারণের কথা উল্লেখ করেছেন।

১. আধুনিক সমাজের মানুষের মতামত, আচরণ ও মূল্যবোধের পার্থক্য, সংস্কৃতির অসমতার কারণ ।

২. বস্তুগত সংস্কৃতির সাথে অবস্তুগত সংস্কৃতির যোগাযোগের অভাব হওয়ায় অবস্তুগত সংস্কৃতির কোনো কোনো অংশ মাঝে মাঝে বস্তুগত সংস্কৃতির পেছনে পড়ে যায়। ফলে সংস্কৃতির মধ্যে অসমতা সৃষ্টি হয় ।

৩. বস্তুগত সংস্কৃতি অবস্তুগত সংস্কৃতি অপেক্ষা দ্রুতগতিতে চলে।

৪. এ ছাড়াও বিভিন্ন Non- Technological social innovation প্রবর্তনের ফলেও সংস্কৃতির অসমতা সৃষ্টি হয়। যেমন-আধুনিক রাষ্ট্রে ক্রমবর্ধমানহারে tax ধার্য করা হলে যাদের Tax বেশি হয় তা কর ফাঁকি দিতে শুরু করে।

→ সমালোচনা : Maciver ও Page সমাজ বিবর্তনের এ অসম ধারাকে সমালোচনা করেছেন। তাদের Society নামক গ্রন্থে। তাদের মতে এ তত্ত্বে সাংস্কৃতিক অসমতা কিভাবে সৃষ্টি হয় তা ব্যাখ্যা করা হয়নি। তাদের মতে, progress বা Lac এ শব্দ দুটির সাথে valuation শব্দটি জড়িত আছে।

উপসংহার : পরিশেষে বলা যায় যে, সংস্কৃতি হচ্ছে মানুষের ব্যক্তিত্ব বিকাশের মাধ্যমে । কিন্তু বিভিন্ন কারণে সমাজের সংস্কৃতির মধ্যে অসমতা পরিলক্ষিত হয়। 

এই অসম উপায়ে সংস্কৃতি চলতে থাকে সংস্কৃতির অসম অগ্রগতি বলে। সমাজবিজ্ঞান Ogbum ও Nimkoff সর্বপ্রথম সংস্কৃতির অসম অগ্রগতি সম্পর্কে ধারণা প্রদান করেন।

আর্টিকেলের শেষকথাঃ সংস্কৃতির অসম অগ্রগতি কি | সংস্কৃতির অসম অগ্রগতি কাকে বলে

আমরা এতক্ষন জেনে নিলাম সংস্কৃতির অসম অগ্রগতি কি | সংস্কৃতির অসম অগ্রগতি কাকে বলে । যদি তোমাদের আজকের এই পড়াটিটি ভালো লাগে তাহলে ফেসবুক বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিতে পারো। আর এই রকম নিত্য নতুন পোস্ট পেতে আমাদের আরকে রায়হান ওয়েবসাইটের সাথে থাকো।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url

Google News এ আমাদের ফলো করুন

fha loan, va loan, refi, heloc