আমার প্রিয় লেখক অনুচ্ছেদ For Class 6, 7, 8, 9, 10

আসসালামু আলাইকুম প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা আজকে বিষয় হলো আমার প্রিয় লেখক অনুচ্ছেদ জেনে নিবো। তোমরা যদি আমার প্রিয় লেখক অনুচ্ছেদ টি ভালো ভাবে নিজের মনের মধ্যে গুছিয়ে নিতে চাও তাহলে অবশ্যই তোমাকে মনযোগ সহকারে পড়তে হবে। চলো শিক্ষার্থী বন্ধুরা আমরা জেনে নেই আজকের আমার প্রিয় লেখক অনুচ্ছেদ  টি।

আমার প্রিয় লেখক অনুচ্ছেদ For Class 6, 7, 8, 9, 10
আমার প্রিয় লেখক অনুচ্ছেদ For Class 6, 7, 8, 9, 10

আমার প্রিয় লেখক অনুচ্ছেদ

আমার প্রিয় লেখক হাসান আজিজুল হক। ষাটোত্তর দশকে বাংলা কথাসাহিত্যের যে নবযাত্রা ঘটেছিল তার অন্যতম প্রাণপুরুষ ছিলেন হাসান আজিজুল হক । চল্লিশােত্তর দশকের প্রবেশমুখে রাঢ়বঙ্গে জন্ম নেওয়া এই কিংবদন্তীতুল্য কথাশিল্পী দেশে বিদেশে ঈর্ষণীয় মনােযােগ কেড়েছেন পাঠক সমালােচকের। অতিক্রম করেছেন একের পর এক সাফল্যের সিঁড়ি। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের অসহ্য উত্তাপ থেকে শুরু করে। সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা, মন্বন্তর, সাতচল্লিশের দেশভাগ, পাকিস্তানি দুঃশাসন, বায়ান্নর ভাষা আন্দোলন, একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ, মুক্তিযুদ্ধোত্তর সামরিক শাসন ও রাজনৈতিক উত্থান-পতনের সব ইতিহাস তার লেখায়। উঠে এসেছে। আত্মজা ও একটি করবী গাছ’, ‘মা মেয়ের সংসার, সমুদ্রের স্বপ্ন’, শীতের অরণ্য’, ‘জীবন ঘষে আগুন’, ‘নামহীন গােত্রহীন’, ‘পাতালে হাসপাতালে’, ‘আমরা অপেক্ষা করছি', রােদে যাবাে’ প্রভৃতি তাঁর উল্লেখযােগ্য গল্পগ্রন্থ । তার গল্পের মুন্সিয়ানায় মুগ্ধ হয়ে পাঠক তাঁকে ‘ছােটগল্পের রাজপুত্র' হিসেবে আখ্যায়িত করেছে। শধ গল্পেই নয়; উপন্যাস, প্রবন্ধ, আত্মজীবনী রচনাতেও হাসান আজিজুল হক তার অসাধারণত্ব প্রমাণ করেছেন। 'আগুনপাখি। উপন্যাসের জন্য তিনি পশ্চিমবঙ্গের ‘আনন্দ পুরস্কার পেয়েছেন। হাসান আজিজুল হক সাম্প্রতিক সময়ে বাংলা সাহিত্যের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র। তাঁর ক্ষুরধার লেখনী আমাকে প্রতিনিয়ত মুগ্ধ করে। আমি মােহমুগ্ধ হয়ে আস্বাদ করি প্রিয় এই কথাশিল্পীর সাহিত্যের রস।

আর্টিকেলের শেষকথাঃ আমার প্রিয় লেখক অনুচ্ছেদ

আমরা এতক্ষন জেনে নিলাম আমার প্রিয় লেখক অনুচ্ছেদ  টি। যদি তোমাদের আজকের এই আমার প্রিয় লেখক অনুচ্ছেদ  টি ভালো লাগে তাহলে ফেসবুক বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিতে পারো। আর এই রকম নিত্য নতুন পোস্ট পেতে আমাদের আরকে রায়হান ওয়েবসাইটের সাথে থাকো।

আরো দেখুন
No Comment
Add Comment
comment url