Rk Raihan https://www.rkraihan.com/2022/07/manosik-obosad.html

মানসিক অবসাদের লক্ষণ | মানসিক অবসাদ থেকে মুক্তির উপায়


ফেসবুকে লিংক শেয়ার করে ১০০০ টাকা আয়
ফ্রিল্যান্সিং করে মাসে কত টাকা আয় করা যায়

আপনি কি মানসিক অবসাদ দূর করার উপায় খুজতেছেন? মানসিক অবসাদ থেকে মুক্তির উপায় খুজে থাকলে স্বাগতম জানাই আমাদের আজকের এই আর্টিকেলে। কারন আজকে আমরা মানসিক অবসাদ দূর করার উপায় জানবো।

মানসিক অবসাদ থেকে মুক্তির উপায়
মানসিক অবসাদ থেকে মুক্তির উপায়

মানসিক অবসাদ কি বা মানসিক অবসাদ কাকে বলে জানতে অনেকে গুগলে সার্চ করে সেই জন্য আমরা মানসিক অবসাদ দূর করার উপায় বা মানসিক অবসাদ থেকে মুক্তির উপায় নিয়ে আমাদের আজকের লেখাটি সাজিয়েছি।

মানসিক অবসাদ কি | মানসিক অবসাদ কাকে বলে

এটি একধরনের শারীরিক ক্লান্তির মতো, এটি আপনার পেশীর পরিবর্তে আপনার মন ছাড়া। আপনি যখন কিছু সময়ের জন্য মানসিকভাবে কঠিন কাজটিতে ফোকাস করেন তখন এটি প্রদর্শিত হয়। আপনি যদি সর্বদা সতর্ক থাকেন বা মানসিক চাপে থাকেন তবে আপনি এই ধরণের ব্রেন ড্রেন অনুভব করতে পারেন। আপনার চাকরি, বাচ্চাদের বা বৃদ্ধ পিতামাতার যত্ন নেওয়া এবং অন্যান্য বিষয় মানসিক অবসাদ সৃষ্টি করতে পারে।

মানসিক অবসাদ দূর করার উপায় | মানসিক অবসাদ থেকে মুক্তির উপায়

মানসিক অবসাদের কারণ ও তা দূরীকরণের উপায় : দৈহিক বা মানসিক অবসাদ, সামগ্রিক বা আংশিক যাই হােক না কেন তার পিছনে কতকগুলাে কারণ রয়েছে। ইতিপূর্বে আমরা আলােচনা করেছি শারীরিক শিক্ষা কর্মসূচিজনিত শারীরিক চাপের কারণে সাধারণভাবে মানুষের মধ্যে অবসাদ আসে। তবে আরও অনেক কারণে অবসাদ আসতে পারে। 

মনােবিদগণ অবসাদের কারণসমূহকে তিন শ্রেণিতে ভাগ করেছেন

(১) দৈহিক কারণ, 

(২) মানসিক কারণ এবং 

(৩) পরিবেশগত কারণ। 

দৈহিক অবসাদের জন্য মাংসপেশিতে ল্যাকটিক এসিডের সৃষ্টি, দেহকোষের ক্ষয়, শরীর থেকে লবণ বের হয়ে যাওয়া, যথেষ্ট পরিমাণে অক্সিজেন ঘাটতি, অতিরিক্ত অঙ্গ সঞ্চালন প্রভৃতি কারণে হয়ে থাকে। এই পাঠে আমরা মানসিক অবসাদ নিয়ে আলােচনা করব। 

মানসিক অবসাদের লক্ষণ | মানসিক অবসাদের লক্ষণ

১। মানসিক প্রস্তুতির অভাব: কোনাে কাজ করার আগে সে সম্পর্কে মানসিক প্রস্তুতি গ্রহণ করা প্রয়ােজন। কর্মসূচি সম্পর্কে পূর্ব ধারণা স্পষ্ট না থাকলে তাড়াতাড়ি মানসিক অবসাদ আসে।

২। কাজে অভ্যস্ত না হয়ে উঠা: কর্মসূচি নিয়মিতভাবে পালনকালে অভ্যস্ত হয়ে উঠলে ঐ কর্মসূচিতে তাড়াতাড়ি অবসাদ আসে না। তাই অভ্যাসের অভাবের কারণে অনেক সময় অবসাদ দেখা দেয়। 

৩। কর্মক্ষেত্রে প্রেষণা এবং কাজের প্রতি অনুরাগের অভাব: যে কোনাে কাজের পিছনে প্রেষণা থাকলে একটানা কাজ করেও অনেক সময় অবসাদ আসে না। আবার যে কাজে প্রেষণা নেই, সেই কাজ তার কাছে বােঝাস্বরূপ। ঐ ধরনের চাপিয়ে দেওয়া কাজে সহজে মানসিক অবসাদ দেখা দেয়। 

৪। মানসিক ইচ্ছার অভাব: কর্মসূচি বাস্তবায়নে শিক্ষার্থীর যদি অনীহা থাকে তাহলে সে দ্রুতই মানসিকভাবে অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়ে। মানসিক ইচ্ছা প্রবল হলে অনেক সময় কঠিন কাজ হলেও তা করা সম্ভব হয়। তাই মানসিক ইচ্ছার অভাব অবসাদের একটি বিশেষ কারণ। 

৫। পরিবেশগত কারণ: দৈহিক ও মানসিক কারণ ছাড়াও কিছু পরিবেশগত কারণেও অবসাদ আসতে পারে। অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ অর্থাৎ সেঁতসেঁতে, আলাে-বাতাসের অভাব এমন পরিবেশ,খুব গরম, খুব ঠান্ডা বা গুমােট আবহাওয়া কোনাে কাজের জন্য অনুকূল পরিবেশ নয়। এরূপ পরিবেশে সহজেই অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়ার সম্ভাবনা বেশি। অনুরূপভাবে পরিমিত আলাে, বাতাস, প্রশস্ত জায়গা ও পরিচ্ছন্ন পরিবেশ না থাকলে অল্পতেই অবসাদ এসে ভর করে।

মানসিক অবসাদ দূরীকরণের উপায়: 

দৈহিক ও মানসিক শক্তি ক্ষয়ের ফলেই যেহেতু অবসাদের উদ্ভব হয়, তাই দেহ ও মনের সুস্থতা ও সক্রিয়তা আনয়নের মাধ্যমে অবসাদ দূর করা সম্ভব। মানসিক অবসাদ দূরীকরণের জন্য আমরা নিচের বিষয়গুলাের উপর গুরুত্বারােপ করতে পারি : 

১। কর্মসূচির প্রতি অনুরাগ সৃষ্টি: শিক্ষার্থীর যদি কর্মসূচির প্রতি আগ্রহ সৃষ্টি হয়, তাহলে তাড়াতাড়ি অবসাদ আসে না। 

২। কর্মসূচির একঘেয়েমিতা পরিহার : বিরক্তিকর কর্মসূচির একঘেয়েমিতা শিক্ষার্থীকে অবসাদগ্রস্ত করে তােলে। অন্যদিকে কাজের ফাঁকে বিশ্রাম কর্মসূচিকে আনন্দপূর্ণ ও বৈচিত্র্যময় করলে অবসাদ দূর করা যায়। 

৩। প্রেষণা: কর্মসূচিতে প্রেষণা থাকলে শিক্ষার্থীরা আনন্দের সাথে তা পালন করবে এবং শীঘ্র অবসাদ আসবে না। 

৪। অতিরিক্ত চাপযুক্ত কর্মসূচি পরিহার: সাধ্যের অতিরিক্ত কোনাে কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য শিক্ষার্থীদেরকে চাপ দেওয়া যাবে না। 

৫। বিশ্রাম ও ঘুম: দেহের ক্ষয়পূরণের জন্য পুষ্টিকর খাবারের প্রয়ােজন। তেমনি অবসাদ দূর করার জন্য প্রয়ােজন পরিমিত বিশ্রাম ও ঘুম। বিশ্রাম ও ঘুমের ফলে দেহ ও মস্তিষ্কের অবসাদ দূরীভূত হয় এবং পুনরায় নতুন উদ্যোগে কাজ করার স্পৃহা জন্মে।

আর্টিকেলের শেষকথাঃ মানসিক অবসাদ দূর করার উপায় | মানসিক অবসাদ থেকে মুক্তির উপায়

বন্ধুরা আমরা এতক্ষন জেনে নিলাম মানসিক অবসাদ দূর করার উপায় | মানসিক অবসাদ থেকে মুক্তির উপায়। যদি আমাদের আজকের এই ব্লগ পোষ্ট টি ভালো লাগে তাহলে নিচে কমেন্ট ও বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করতে ভুলবেন না। আর এই রকম নিত্য নতুন আর্টিকেল পেতে আমাদের আরকে রায়হান ওয়েবসাইট টি ভিজিট করুন।

apple iphone মানসিক অবসাদ বা স্মৃতিলোপের আগাম সতর্কতা দিবে, মানসিক অবসাদ থেকে মুক্তির উপায়, মানসিক অবসাদ কাকে বলে, মানসিক অবসাদ কি, মানসিক অবসাদ, মানসিক অবসাদ দূর করার উপায়, মানসিক অবসাদের লক্ষণ, মানসিক অবসাদের কারণ, মানসিক অবসাদ উইকিপিডিয়া, মানসিক অবসাদ কী

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

Please do not enter any spam link in the comment box.

আরকে রায়হান নোটিফিকেশন