business loans, commercial loan, auto insurance quotes, motorcycle lawyer

জ্ঞান তত্ত্বের ভিত্তিতে জেন্ডার অধ্যয়ন আলোচনা কর

আসসালামু আলাইকুম প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা আজকে বিষয় হলো জ্ঞান তত্ত্বের ভিত্তিতে জেন্ডার অধ্যয়ন আলোচনা কর জেনে নিবো। তোমরা যদি পড়াটি ভালো ভাবে নিজের মনের মধ্যে গুছিয়ে নিতে চাও তাহলে অবশ্যই তোমাকে মনযোগ সহকারে পড়তে হবে। চলো শিক্ষার্থী বন্ধুরা আমরা জেনে নেই আজকের জ্ঞান তত্ত্বের ভিত্তিতে জেন্ডার অধ্যয়ন আলোচনা কর।

জ্ঞান তত্ত্বের ভিত্তিতে জেন্ডার অধ্যয়ন আলোচনা কর
জ্ঞান তত্ত্বের ভিত্তিতে জেন্ডার অধ্যয়ন আলোচনা কর

জ্ঞান তত্ত্বের ভিত্তিতে জেন্ডার অধ্যয়ন আলোচনা কর

উত্তর : ভূমিকা : সমাজে নারী-পুরষের আলাদা পরিচয় পাওয়া যায় জেন্ডার বা লিঙ্গের মাধ্যমে। এই জেন্ডারের মাধ্যমেই সমাজে নারী- পুরণের আলাদা অবস্থান এবং সামাজিক প্রতিষ্ঠানগুলোতে তাদের উভয়ের সুযোগ-সুবিধায় ভিন্নতা লক্ষ করা যায় জেন্ডারের জন্যই।

→ জ্ঞানতত্ত্ব : জ্ঞানতত্ত্ব শব্দের ইংরেজি প্রতিশব্দ হলো 'Epistemology' এই শব্দটি গ্রিক শব্দ episteme যার অর্থ জ্ঞান বা knowledge এবং Logos যার অর্থ বিজ্ঞান (Science)।

দর্শনের যে শাখা জ্ঞানের বিভাগ নিয়ে অধ্যয়ন করে তাকে জ্ঞানতত্ত্ব বলে। এটি জ্ঞান সম্পর্কে অনেকগুলো প্রশ্নের অনুসন্ধান করে। যেমন- জ্ঞান কি? কিভাবে তা অর্জন করা যায়? কিভাবে আমরা জানি; কি জানি?

জ্ঞানের প্রকৃতি বিশ্লেষণে জ্ঞানের সাথে সম্পর্কিত ধারণা, যেমন- সত্য, বিশ্বাস ও ন্যায্যতা। জ্ঞানের উৎপত্তি উদ্দেশ্যবাদের মতো জ্ঞানের বিভিন্ন শাখা সম্পর্কে দৃঢ়ভাবে আলোচনা করে থাকে।

জ্ঞানের ভিত্তি ও সূক্ষ্ম অনুসন্ধানমূলক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে জ্ঞানের বিভিন্ন শাখা সম্পর্কে অধ্যয়ন করে জ্ঞান বিষয়টি। উইলিয়াম পেরি হার্ডটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের বুদ্ধিমত্তা যাচাই করেন ১৯৫০ এর মাঝামাঝি সময়ে। 

এর দ্বারা তিনি জ্ঞানতত্ত্বীয় ধারণার বিকাশ ঘটান । বর্তমান সময়ে SUSA, Greco, Kvanrig, Zagzebaski প্রমুখ জ্ঞান তাত্ত্বিক যুক্তি দেখান যে জ্ঞানের দ্বারা বিশ্বাসের সত্যতা নিরূপিত করা হয় ।

→ জ্ঞানতত্ত্বীয় ভিত্তিতে জেন্ডার অধ্যয়ন : সাধারণত জেন্ডার বলতে নারী ও পুরুষকে বুঝায়। তবে এর দ্বারা নারী ও পুরুষের মধ্যে কোন অসমতা বা পার্থক্য বুঝায় না। এটি নারী-পুরুষ উভয়কেই পক্ষপাতহীনভাবে অধ্যয়ন করে থাকে। 

জৈবিকভাবে নানী ও পুরুষ আলাদা। কিন্তু এর মাধ্যমে নারী ও পুরুষকে পক্ষপাতহীন দৃষ্টিভঙ্গির আলোকে বিশ্লেষণ করা হচ্ছে। জেন্ডার প্রত্যয়টি দ্বারা নারী ছাড়াও নারী-পুরুষ সম্পর্কে বস্তুনিষ্ঠ জ্ঞান আহরণ, 

নারী ও পুরুষ সম্পর্কে মানুষের বিশ্বাস এবং তাদের মধ্যে পার্থক্য, সমাজে নারী ও পুরুষ সম্পর্কে যে ধারণা প্রচলিত আছে, সেগুলো সম্পর্কে জ্ঞান ও তত্ত্বীয় শব্দটির দ্বারা ব্যাখ্যা করা হচ্ছে।

সমাজ নারী সম্পর্কে কি ধারণা পোষণ করে? সমাজে নারীর ভূমিকা কি? নারী সম্পর্কে মানুষের যে বিশ্বাস সেগুলো জ্ঞানতত্ত্বীয় পদ্ধতির মাধ্যমে সত্যতা নিরূপণ করা হচ্ছে। নারী ও পুরুষের ভূমিকা সম্পর্কে যে ধারণা চলমান তা জ্ঞানতত্ত্বীয় পদ্ধতিতে সত্যায়ন করা হচ্ছে। 

উপসংহার : উপরের আলোচনা পর্যালোচনা করে দেখা যায় যে, নারী ও পুরুষকে নিরপেক্ষভাবে আমরা জেন্ডার প্রত্যয়টির মাধ্যমে জানি। সমাজে নারী সম্পর্কে যে ধারণা বিদ্যমান, সমাজের মানুষ নারী সম্পর্কে সে ধারণা পোষণ করে জ্ঞানতত্ত্বের মাধ্যমে তার সত্যানুসন্ধান বা সঠিকতা নিরূপণ করে ।

আর্টিকেলের শেষকথাঃ জ্ঞান তত্ত্বের ভিত্তিতে জেন্ডার অধ্যয়ন আলোচনা কর

আমরা এতক্ষন জেনে নিলাম জ্ঞান তত্ত্বের ভিত্তিতে জেন্ডার অধ্যয়ন আলোচনা কর। যদি তোমাদের আজকের এই পড়াটিটি ভালো লাগে তাহলে ফেসবুক বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিতে পারো। আর এই রকম নিত্য নতুন পোস্ট পেতে আমাদের আরকে রায়হান ওয়েবসাইটের সাথে থাকো। 

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url

Google News এ আমাদের ফলো করুন

fha loan, va loan, refi, heloc